রেজি: নং - আবেদিত, প্রতিষ্ঠাকাল: ১মার্চ ২০১৪                                           শনিবার,  ৩১শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ,  ১৬ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ,  রাত ১০:১৪

নেপালে বিমান দুর্ঘটনা সাংবাদিক আহমেদ ফয়সাল স্মরণে শরীয়তপুর সাংবাদিক সমিতি, ঢাকা’র শোকসভা অনুষ্ঠিত

March 24, 2018 , 3:56 pm

3নিজস্ব প্রতিবেদক

নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত বৈশাখী টেলিভিশনের সাংবাদিক আহমেদ ফয়সাল কর্মস্ট’লে খুবই দায়িত্বশীল ছিলেন। তিনি জাতীয় পর্যায়ে সাংবাদিকতা করলেও সব সময়ে নিজের এলাকার খোঁজ রাখতেন। তার অকাল প্রয়ানে বৈশাখী টেলিভিশন একজন একনিষ্ঠ কর্মীকে হারিয়েছে, তেমনি শরীয়তপুরবাসী তার একজন কৃতি সন্তানকে হারিয়েছে। ফয়সালের স্মরণে আয়োজিত শোকসভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। ২৩ মার্চ শুক্রবার সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) শরীয়তপুর সাংবাদিক সমিতি, ঢাকা ওই শোক সভার আয়োজন করে। শরীয়তপুরের সন্তান ফয়সাল ওই সংগঠনের সদস্য ছিলেন।

 

সংগঠনের সভাপতি রাজু আলীমের সভাপতিত্বে শোকসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন, শরীয়তপুর-২ আসনের এমপি ও সাবেক ডেপুটি স্টিক্সকার কর্ণেল (অব:) শওকত আলী,  বিশেষ অতিথি ছিলেন শরীয়তপুর-১ আসনের এমপি ও আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সল্ফক্সাদক একেএম এনামুল হক শামীম, নারী নেত্রী মিজ মাজেদা শওকত আলী ও বৈশাখী টেলিভিশনের প্রধান বার্তা স¤ক্সাদক ও ডিআরইউর সভাপতি সাইফুল ইসলাম।

 

শওকত আলী এমপি বলেন, ফয়সাল ঢাকায় সাংবাদিকতা করলেও সব সময়ে এলাকার রাজনীতি কার্যত্রক্রমের খোঁজ রাখতেন। তাকে হারিয়ে শরীয়তপুরবাসী শোকাহত।

 

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক বলেন, ফয়সাল আওয়ামী লীগ ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিভিন্ন কর্মসূচিতে খবর সংগ্রহ করতেন। এর ফাঁকেই এলাকার রাজনীতির খবর নিতেন। নিয়মিতই তার সঙ্গে যোগাযোগ হত।

 

ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম বলেন, ফয়সাল আওয়ামী লীগ ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বিটে কর্মরত থাকায় তার সঙ্গে বিশেষ সখ্য গড়ে উঠেছিল। নিজের কর্মের মধ্যেই এই তরুণ সাংবাদিক দীর্ঘদিন বেঁচে থাকবেন। তিনি সবাইকে নিয়ে ফয়সালের পারিবারের পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দেন।

মিজ মাজেদা শওকত আলী বলেন, ফয়সাল ছিলেন তাদের সন্তানের মতো। বাবা-মা জীবিত থাকতে একজন সন্তানের মৃত্যু বড় শোকের। তিনি ফয়সালের শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান।

 

নিজের সহকর্মীকে নিয়ে বক্তব্য দিতে গিয়ে আবেগাল্পুত হয়ে পড়েন বৈশাখী টেলিভিশনের প্রধান বার্তা সম্পাদক ও ডিআরইউর সভাপতি সাইফুল ইসলাম। তিনি বলেন, ফয়সাল নিজের পেশায় দায়িত্বশীল ছিলেন এবং কাজের প্রতি তার আগ্রহ ছিল। ফয়সালের অকাল মৃত্যুতে বৈশাখী টিভি একজন একনিষ্ঠ কর্মীকে হারিয়েছে।

 

সংগঠনের সভাপতি ও চ্যানেল আইয়ের সাংবাদিক তরুণ কবি রাজু আলীম বলেন, অকাল প্রয়াত আহমেদ ফয়সালের স্মৃতি ধরে রাখতে প্রত্যেক বছর ‘ অাহমেদ ফয়সাল স্মৃতি পদক’ দেওয়া হবে। শরীয়তপুর সাংবাদিক সমিতির সদস্যদের মধ্য থেকে জুরি বোর্ডের মাধ্যমে সেরা সাংবাদিককে এ পদক দেওয়া হবে।

 

শরীয়তপুর সাংবাদিক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক ও সমকালের সাংবাদিক আতাউর রহমান বলেন, আহমেদ ফয়সাল একজনস্বপ্নবান তরুণ ছিলেন। তার স্বপ্ন ছিল শরীয়তপুর জেলায় কর্মরত মফস্বল সাংবাদিকদের উন্নত প্রশিক্ষণ দিয়ে আরো শক্তিশালী করে গড়ে তোলা। শরীয়তপুরের সব রাজনৈতিক নেতা ও সাংবাদিকদের নিয়ে একদিনের জন্য হলেও পদ্মসেতু প্রকল্পে সেচ্ছাশ্রম দেওয়া। আমরা তার স্বপ্নের সারথি হয়ে তা বাস্তবায়নের চেষ্টা করবো।

 

শোকসভায় ফয়সালকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন শরীয়তপুর সাংবাদিক সমিতির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য যুগান্তরের সিনিয়র সাংবাদিক মোজাম্মেল হক চঞ্চল, শরীয়তপুর সাংবাদিক সমিতির সহ-সভাপতি চ্যানেল আইয়ের সাংবাদিক রেজাউল হক রেজা, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও এশিয়ান টেলিভিশনের চীফ রিপোর্টার হাবিবুর রহমান পলাশ, যুগ্ম সম্পাদক ও অর্থসূচকের সিনিয়র সাংবাদিক আসাদুজ্জামান আজম, দফতর সম্পাদক ও সময় টিভির সাংবাদিক ওবায়দুল্লাহ মামুন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং যুগান্তরের প্রদায়ক মহিউদ্দিন তুষার প্রমুখ।

 

শোক সভায় উপস্থিত ছিলেন শরীয়তপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক পিন্টু, জেলা পরিষদ সদস্য সাখাওয়াত হোসেন হাওলাদার, শরীয়তপুর সদর উপজেলা পরিষদের ভাইসচেয়ারম্যান ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আলমগীর হোসেন হাওলাদার, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিদ্দুকুর রহমান পাহাড়, ডামুড্যা উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন, ঢাকাস্থ ডামুড্যা যুব কল্যাণ ট্রাস্টের সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান প্রমুখ।

Total View: 1280